পরকীয়ায় ভারতের ৮ লক্ষ মানুষ জড়িত ! তালিকার শীর্ষে বেঙ্গালুরু, মুম্বই, কলকাতা !

444

 

খবরএইসময়,4 ফেব্রুয়ারি,ওয়েব ডেস্ক প্রতিবেদন: একটা সময় ছিল যখন পরকীয়া শুনলেই অনেকেরই বুকের ভিতর দুরু দুরু শুরু হয়ে যেত।কেউ কেউ আবার নাকও শিঁটকোতেন।কিন্তু যেইনা সুপ্রিম কোর্ট থেকে পরকীয়া আইনসিদ্ধ করে দেওয়া হল, তারপর থেকেই যেন গ্রিন সিগনাল পেয়েছেন কিছু মানুষ। সম্প্রতি একটি অনলাইন ডেটিং এবং সোশ্যাল নেটওয়ার্ক সার্ভিস অ্যাপ একটি সমীক্ষা চালিয়েছিল বিবাহিত পুরুষ ও মহিলাদের মধ্যে। তাতে সামনে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। সমীক্ষায় দাবি করা হয়েছে, ভারতের প্রায় ৮ লক্ষ মানুষ পরকীয়া সম্পর্কে জড়িত।

‘হ্যাপিলি ম্যারেড’ কথাটা শুধুমাত্র সোশ্যাল মিডিয়া হ্যাশট্যাগেই সীমাবদ্ধ, একঘেয়েমি জীবন থেকে মুক্তি পেতে নারী-পুরুষ নির্বিশেষে মেতেছে পরকীয়া খেলায়। সম্প্রতি এই পরকীয়া নিয়েই একটি রিপোর্ট প্রকাশিত হল। আর তাতেই উঠে এল এক আশ্চর্যজনক তথ্য, ভারতের প্রায় ৮ লক্ষ মানুষ পরকীয়া সম্পর্কে জড়িত আছেন। এই তালিকায় শীর্ষে রয়েছে বেঙ্গালুরু, মুম্বই এবং কলকাতা।

ফোন খুললেই আসতে থাকে বিভিন্ন ডেটিং অ্যাপের টুংটাং নোটিফিকেশন, আর স্ট্রেসফুল জীবন থেকে ক্ষণিকের রেহাই পেতে মানুষ পা দিয়ে ফেলছে ডেটিং অ্যাপের ফাঁদে। একটু খেয়াল করলেই দেখা যাবে  বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িত রয়েছে বেশ কিছু মানুষ। এই সম্পর্ক গুলির কোনও ভবিষ্যৎ না থাকলেও মোহের বশে এই সমস্ত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ছেন অনেকেই। পরকীয়া নিয়ে প্রকাশিত রিপোর্টে দেখা গিয়েছে ডেটিং অ্যাপ এর মাধ্যমে পরকীয়ায় মেতে উঠেছে বেঙ্গালুরুর কিছু পুরুষ। সমীক্ষায় আরও প্রমাণিত হয়েছে যে মেয়েদের তুলনায় পুরুষদের সংখ্যা বেশি। সব মিলিয়ে ভারতের প্রায় ৮ লক্ষেরও বেশি মানুষ পরকীয়া সম্পর্কে জড়িত আছেন। যে হারে প্রত্যেকের হাতে হাতে স্মার্টফোনের সংখ্যা বেড়ে গেছে তাতে নিত্য নতুন ডেটিং অ্যাপের জনপ্রিয়তা তুঙ্গে। শুধুমাত্র শারীরিক চাহিদা মেটানোর তাগিদায় নারী পুরুষ নির্বিশেষে এই সমস্ত অ্যাপের দিকে ঝুঁকছেন।

বেঙ্গালুরুর পাশাপাশি যথাক্রমে দ্বিতীয় এবং তৃতীয় স্থানে রয়েছে মুম্বই এবং কলকাতার পুরুষেরা,তারপরেই আছে দিল্লী, এরপর হায়দ্রাবাদ।পাশাপাশি মেয়েদের দিক দিয়ে তালিকায় এগিয়ে আছে বেঙ্গালুরু, তারপর যথাক্রমে মুম্বই এবং চেন্নাই। এছাড়াও তালিকায় কলকাতা শহরও রয়েছে। পরকীয়া নিয়ে কম গবেষণা হয়নি, তাতে ধরা পড়েছে নানান কারণও।  সম্পর্কে থেকেও একাকীত্বে ভোগা কিংবা বিবাহ জীবনের একঘেয়েমি, নারী-পুরুষ নির্বিশেষে মুক্তির স্বাদ খুঁজছে পরকীয়াতেই।

তথ্যসূত্র: ইন্ডিয়া টুডে।