অবৈধভাবে মাছ ধরতে গিয়ে ট্রলারসহ ১২ জন ভারতীয় মৎসজীবি আটক বাংলাদেশে

173

 

আবু আলী,৮ ফেব্রুয়ারি,ঢাকা: বাংলাদেশের সমুদ্রসীমায় অনুপ্রবশে করে অবধৈভাবে মাছ ধরায় ১২ জন ভারতীয় মৎসজীবিকে আটক করছেে বাংলাদশে কোস্ট র্গাড। 
কোস্ট গার্ডের সদর দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, শুক্রবার ৭ই ফেব্রুয়ারি দুপুরে কোস্ট র্গাড সুন্দরবনের দক্ষিণে বাংলাদেশের জলসীমায় অভিযান চালানোর সময় ভারতীয় একটি ট্রলার দেখতে পেয়ে আটক করতে এগিয়ে যায়। সেইসময় ভারতীয় ট্রলারটি ভুল বুঝতে পেরে তড়িঘড়ি ভারতের জলসীমায় পালয়িে যাওয়ার চেষ্টা করে।তবে শেষ রক্ষা হয়নি। ঘণ্টা কয়েক পরেই শুক্রবার গভীর রাতে ১২ জন মৎসজীবি সহ ট্রলারটিকে আটক করে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড।
আটক মৎসজীবিদের ৮ ই ফেব্রুয়ারি শনবিার দুপুরে মোংলা থানায় হস্তান্তর করে মামলা করা হয়ছে।ওই
ট্রলারে থাকা মাছ প্রকাশ্য নিলামে ৫২ হাজার টাকায় বিক্রি করা হয়ছেে বলে জানিয়েছেন মোংলা উপজেলা সহকারী কমশিনার (ভূমি) নয়ন কুমার।
মোংলা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত র্কমর্কতা (ওসি) মো. ইকবাল বাহার চৌধুরী বলনে, শুক্রবার রাতে বঙ্গোপসাগরের ফয়োরওয়ে বয়া এলাকা থেকে ফিশিং ট্রলারসহ ১২জন ভারতীয় মৎসজীবিকে আটক করে কোস্টর্গাড। ৯ই ফেব্রুয়ারি রবিবার তাদেরকে আদালতে পাঠানো হবে। এই নিয়ে সাত দফায় বাংলাদেশের সমুদ্রসীমায় অবধৈ অনুপ্রবেশ করে মাছ শিকারের অপরাধে ১৫৩ জন ভারতীয় মৎসজীবি আটক হল।
ওসি ইকবাল বাহার চৌধুরী আরও বলনে, বঙ্গোপসাগরের সুন্দরবন উপকূলে বাংলাদেশের সমুদ্রসীমায় অবধৈ অনুপ্রবেশ করে মাছ শিকারের সময় গত ২রা অক্টোবর প্রথম দফায় একটি ফিশিং ট্রলারসহ ১৫জন ভারতীয় মৎসজীবি আটক হয়। এরপর ৪ঠা অক্টোবর দুটি ফিশিং ট্রলারসহ ২৩ জন, ২২শে অক্টোবর একটি ফিশিং ট্রলারসহ ১৪ জন, ৪ ঠা নভম্বের চারটি ফিশিং ট্রলারসহ ৪৯ জন, ১০ই ডিসেম্বর একটি ফিশিং ট্রলারসহ ১৪ জন, ১৮ই জানুয়ারি দুটি ফিশিং ট্রলারসহ ২৬ জন এবং র্সবশেষ ৭ই ফেব্রুয়ারি ১২ জন ভারতীয় মৎসজীবিকে আটক করা হয়।