এত বারুদের খোলা ব্যাবসা হলে নির্বাচন কি করে শান্তিতে হবে ? রাজ্যপাল

190

 

খবর এইসময়,মধ্যমগ্রামঃ এত বারুদের খোলা ব্যাবসা হলে নির্বাচন কি করে শান্তিতে হবে? প্রশ্ন তুললেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়।আজ সকালে মধ্যমগ্রামে স্কাউট গান্ধীজীর ১৫০ তম জন্ম বর্ষ উৎযাপনে এসেছিলেন তিনি।বাংলার সাংস্কৃতিক গরিমা ও প্রতিভার কথা উল্লেখ করে রাজ্যপাল প্রশ্ন তোলেন এত নোবেলজয়ীর বাংলাকে কি করে সন্ত্রাসের আড্ডা বানানো যায়।সিএএ ও এন আর সির পর রাজ্য যে সন্ত্রাস দেখছে সেই কথাও উল্লেখ করেন এই দিন তিনি।রেল লাইন ওপরানো ও ভাঙ্গচূড়ে কথা বলেন।

 তিনি বলেন, রাজ্য কোথাও বিস্ফোরণ হলে তিনি বিচলিত হন।কারন বিস্ফোরণে মানুষের ক্ষতি হয়।এই দিন ভারত স্কাউটে সেলুট জানানো পদ্ধতির কথা উল্লেখ করে বলে সবল সব সময় দূর্বলকে রক্ষা করবে এটাই ভারতের সংস্কৃতি।রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় এই দিন তাঁকে সমালোচক হিসাবে না ভাবতে বলেন।বরং রাজ্যের গঠন মূলক পরামর্শদাতা হিসাবে তাঁকে যেন ভাবা হয়।তাঁর মতে গভর্নর ও গভারমেন্ট একই গাড়ির দুটি চাকা।দুজনকেই একই সঙ্গে চলতে হবে।তিনি সরকারের কাজ আটকাবেন না। কিন্তুু সংবিধানের মধ্যে থেকে রুল বুক মেনে চলবেন।কাগজ ছাড়াই অর্থ বিল অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছিল রাজভবনে। সেই কথা উল্লেখ করে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় এই দিন বলেন অর্থমন্ত্রী রাজভবনে এসে রীতিমেনে সেই বিল অনুমোদনের অনুরোধ করেন।কিন্তুু তিনি তা মানেন নি।পরে সচিব কাগজ নিয়ে আসলে বিল অনুমোদন করে দেন তিনি।এইদিন তিনি মহত্মা গান্ধী রামকৃষ্ণ ও বিবেকান্দের উল্লেখ করে সকলকে শান্তির জন্য কাজ করতে বলেন।তবে মহত্মার জন্মবর্ষ এর এইদিনের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নাম না করে বলেন দেশের প্রধান এখন দুনিয়ার প্রথম সারির নেতা।তাঁর দাবী এই দশক ঠিক করবে আগামী দিন ভারত কোথায় পৌছাবে।