মেট্রো রেলের অনুষ্ঠানে কেন মুখ্যমন্ত্রীকে ডাকা হবে ? দিলীপ

215

 

নিজস্ব প্রতিনিধি,13ফেব্রুয়ারি,সল্টলেকঃ অবশেষে শুরু হল পথ চলা। আজ বৃহস্পতিবার ইস্ট ওয়েস্ট মেট্রোর উদ্বোধন করেন কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল।এছাড়াও এদিনের অনুস্থানে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় সহ রেলের আধিকারিকরা।তবে এদিনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেখা গেল না শুধু রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই নয় পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম সহ  মুখ্যসচিব এমনকি তৃনমূল কংগ্রেসের কোনও এমপি, এমএলএ-কেও।তার কারন তৃণমূল সূত্রের খবর অনুযায়ী, এই প্রকল্পের জমি দিয়েছে রাজ্য সরকার। অথচ মুখ্যমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি।আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে শুধুমাত্র স্থানীয় বিধায়ক সুজিত বসু, স্থানীয় সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার ও স্থানীয় মেয়র কৃষ্ণা চক্রবর্তীকে।উদ্বোধনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে একতরফাভাবে। তাই রাজ্য সরকারের তরফে অনুষ্ঠান বয়কটের সিদ্ধান্ত হয়েছে।

অন্যদিকে আজই সল্টলেক সেন্ট্রাল পার্ক মেলা মাঠের সামনে শিক্ষকদের অবস্থান বিক্ষোভে আসেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সাংসদ দিলীপ ঘোষ। মুখ্যমন্ত্রীকে আমন্ত্রন না জানানোর বিষয় নিয়ে জানতে চাওয়া হলে বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষ বলেন, যেখানে অনুষ্ঠান হচ্ছে। যেখানে মানুষ সুবিধা পাবে সেখানকার জন প্রতিনিধিদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। এমএলএ, এমপি, চেয়ারম্যান দের ডাকা হয়েছে। এটাই প্রটোকল। মমতা ব্যানার্জি সব জায়গায় দিদিগিরি করেন। ওনাকে কেন ডাকা হবে।

উনি আজ পর্যন্ত কাকে সম্মান দিয়েছেন!আমাদের কাকে ডেকেছেন? উনি আমাদের এমপি, এমএলএ, কোন জন প্রতিনিধিকে ডাকেন! কোনও কমিটিতে বিরোধী পক্ষের নেতা নেত্রী প্রতিনিধি কাউকে রাখেন? উনি কখনও বুদ্ধদেব বাবুকে ডেকেছেন? আজকে এই উচ্চ আশা কেন! গায়ের জোরে সম্মান কেড়ে নেওয়া! অন্যের অধিকার কেড়ে নেওয়া। হাইওয়ে জোর করে উদ্বোধন করে দিচ্ছেন, সার্কিট বেঞ্চ জোর করে উদ্বোধন করে দিচ্ছেন, এই অধিকার ওনাকে কে দিয়েছেন? এইটা উনার পাওনা ছিল যেটা হয়েছে ঠিক হয়েছে।